সরকার আদিম হিংস্রতা শুরু করেছে : মির্জা ফখরুল

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, স্বাধীন দেশে যেকোন বিষয়ে কর্মসূচি পালন করার অধিকার সকল নাগরিকের সাংবিধানিক অধিকার। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য যে, বর্তমান অবৈধ ভোটারবিহীন সরকার জনগণের সকল গণতান্ত্রিক ও সাংবিধানিক অধিকার হরণ করছে। দেশে এখন বর্তমান আওয়ামী সরকার আদিম হিংস্রতা শুরু করেছে।

তিনি বলেন, আতঙ্ক ও ভয়ের পরিবেশ চারিদিকে বিরাজমান। জনপদে জনপদে বর্তমান সরকারের ভয়াবহ দুঃশাসন ও নিপীড়ণ ব্যাপক আকার ধারণ করেছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও দপ্তরের চলতি দায়িত্বে থাকা সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স সাক্ষরিত গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল এসব মন্তব্য করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, যুব অধিকার পরিষদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে পুলিশ বাধা প্রদান, লাঠিচার্জ, টিয়ারশেল, সাউন্ড গ্রেনেড নিক্ষেপ ও গুলিবর্ষণ এবং ছাত্রলীগ ন্যাক্কারজনক হামলা হামলা চালায়। পুলিশ ও ছাত্রলীগের এই বর্বরোচিত হামলায় ডাকসু’র সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরসহ শতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়। এই হামলা প্রমাণ করে বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার কতটা নির্মম, অগণতান্ত্রিক, ফ্যাসিবাদী ও কর্তৃত্ববাদী। তিনি বলেন, গত ১২ বছরে সরকারের বিরুদ্ধে গড়ে ওঠা আন্দোলন সংগ্রাম দমন করতে তারা একই কায়দায় দমন-নিপীড়ণ চালিয়েছে।

বিবৃতিতে তিনি আরো বলেন, সরকার তাদের অগণতান্ত্রিক, গণবিরোধী কার্যকলাপের কারণে জনবিচ্ছিন্ন হয়ে নিজেদের অনৈতিক ক্ষমতা পাকাপোক্ত করতে দমন-পীড়ণসহ নানা নির্মমতার আশ্রয় নিচ্ছে, জনগণের রক্তে হাত রঞ্জিত করতে তারা বিন্দুমাত্র দ্বিধা করছে না। তবে অতীতে যেমন কোন স্বৈরাচারই জনগণের অধিকারের ওপর দমন-পীড়ণ চালিয়ে নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষা করতে পারেনি, বর্তমান ক্ষমতাসীনরাও গায়ের জোরে ক্ষমতা আঁকড়ে রেখে জনগণের অধিকার বিলুপ্ত করতে সক্ষম হবে না। অচিরেই তাদের পতন হবে। এসময় তিনি অবিলম্বে গ্রেফতারকৃত নেতাকর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি জানান। আহত নেতাকর্মীদের দ্রুত সুস্থতা কামনা করেন।

পাঠকের মন্তব্য