ইসলামভীতি ছড়ানোর বিষয়বস্তু মুছে দিতে ফেসবুকের প্রতি মার্কিন আইনপ্রণেতাদের আহ্বান

পিটি ডেস্ক: মার্কিন আইনপ্রণেতাদের ৩০ জনের একটি দল মুসলিমবিরোধী বিষয়বস্তু মুছে দিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। বিষয়টিকে ‘বিপজ্জনক’ ও ‘মারাত্মক’ বলে অভিহিত করে মঙ্গলবার তারা এই আহ্বান জানান।


 ডেমোক্রেটিক দলের কংগ্রেস সদস্য ডেবি ডিংগেলের নেতৃত্বে আইনপ্রণেতারা বলেন, ফেসবুক তাদের প্ল্যাটফর্মকে ‘মুসলমানদের প্রতি অমানবিক ব্যবহার এবং বিশ্বব্যাপী মুসলমানদের বিরুদ্ধে সহিংসতা ও গণহত্যা উস্কে দেয়ার মতো অপব্যবহারের’ প্রতিক্রিয়ায় ভূমিকা নিতে ব্যর্থ হয়েছে।

‘মুসলিমদের লক্ষ করে ছড়ানো ঘৃণা ও সহিংসতাকে কার্যকরীভাবে রুখতে এখন পর্যন্ত ফেসবুকের অনীহাই পরিলক্ষিত হয়েছে,’ ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও মার্ক জুকারবার্গকে লেখা একটি চিঠিতে তারা এ কথা বলেন।


 
আইনপ্রণেতারা ছয়টি মানদণ্ড চেয়েছেন, যেখানে মুসলিমবিরোধী ধর্মান্ধতার বিষয়ে একটি ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠন, মিলিশিয়া এবং শ্বেত আধিপত্যবাদীদের জন্য বৃহত্তর প্রয়োগকারী পদক্ষেপ, এবং ফেসবুকের ‘মুসলিমবিরোধী সহিংসতা, গণহত্যা এবং বন্দীদশা সক্রিয়করণের’ উপর একটি স্বাধীন পর্যালোচনাসহ বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা বলা হয়েছে।

অ্যাডভোকেসি গ্রুপ মুসলিম অ্যাডভোকেটসের পরিচালক স্কট সিম্পসন এই চিঠির জন্য আইন প্রণেতাদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমেরিকা ও বহির্বিশ্বের মুসলমানদের যে ক্ষতির কারণ হয়েছে তার জন্য ফেসবুককে দায়বদ্ধ করার পক্ষে’ এই চিঠিটি ভূমিকা রাখবে।

‘এই তো গত সপ্তাহে আমরা দেখেছি, ক্রাইস্টচার্চের শ্যুটার কেবল তার হত্যাযজ্ঞ লাইভ সম্প্রচারের জন্যই ফেসবুক ব্যবহার করেনি, বরং এই প্ল্যাটফর্মে সে একাধিক মুসলিমবিরোধী ঘৃণিত গোষ্ঠীর সদস্যও ছিল। মুসলিমবিরোধী ঘৃণা ছড়ানোর মারাত্মক পরিণতি রয়েছে এবং মার্ক জুকারবার্গ ও শেরিল স্যান্ডবার্গকে তাদের প্ল্যাটফর্মে এটির বিস্তার রোধে অবশ্যই পদক্ষেপ নিতে হবে,’ এক বিবৃতিতে বলেন তিনি।  সূত্র : আনাদোলু এজেন্সি

পিটি/আরএইচ

পাঠকের মন্তব্য