অক্সফোর্ডের টিকা ৭০ শতাংশ কার্যকর, প্রশংসা বরিসের

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা ৭০ শতাংশ কার্যকর। তাদের চূড়ান্ত ট্রায়ালে এমন আশানুরূপ ফলাফলে অনেকটা হতাশা ব্যক্ত করছেন বিশেজ্ঞরা। ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি তাদের খবরে জানিয়েছে, অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন এখন পর্যন্ত ৭০ শতাংশ কার্যকারিতার প্রমাণ পাওয়া গেলেও অন্যান্য টিকার থেকে এর দাম তুলনামূলক কম। এতে বিশ্বের প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষ এই টিকা নিতে পারবে। 

করোনা ভাইরাস রোধের এই ভ্যাকসিন উপসর্গকে ৭০ শতাংশ পর্যন্ত কমিয়ে দিচ্ছে। যেখানে মডার্না, ফাইজার এবং রাশিয়ার স্পুটনিক-৫ -এর টিকা গড়ে ৯০ শতাংশের ওপরে কাজ করছে এমন দাবি করে টিকা প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানগুলো। 

এখন পর্যন্ত ২০ হাজার মানুষের ওপরে অক্সফোর্ডের টিকার ট্রায়াল চালানো হয়। সব মিলিয়ে দেখা গেছে পরীক্ষাধীন ভ্যাকসিনটি ৭০ শতাংশ কাজ করেছে। প্রতিষ্ঠানটির গবেষণায় উঠে এসেছে, স্বেচ্ছাসেবীদের যখন দুটি উচ্চমাত্রার ডোজ দেয়া হচ্ছে, তখন ৬২ শতাংশ পজেটিভ ফল এসেছে। অন্য একটি পরীক্ষায় এক ডোজ কম দেয়া হলে ৯০ শতাংশ কার্যকরের ফল পাওয়ার দাবি করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

অ্যাস্ট্রাজেনেকার কার্যনির্বাহী প্রধান পাস্কাল সরিওট একটি বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ‘করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এক মাইলফলক তৈরি করল সংস্থাটি। করোনা টিকার কার্যকারিতা প্রমাণ হয়েছে। এটি নিরাপদ ও মানবশরীরে যথেষ্ট কার্যকর। বাজারে এলে তাৎক্ষণিকভাবে প্রভাব পড়বে জনস্বাস্থ্যে। অনেকাংশে করোনা প্রকোপ রুখে দেওয়া সম্ভব হবে’।

এরই মধ্যে বিশেষজ্ঞ এবং স্বেচ্ছাসেবীদের প্রশংসা করে একে ‘চমৎকার ফলাফল’ বলে অবিহিত করেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

তবে আরও নিখুঁত গবেষণার মাধ্যমে অ্যাস্ট্রা-অক্সফোর্ড ভ্যাকসিনের সক্ষমতা ৯০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়িয়ে তোলা সম্ভব বলে দাবি প্রতিষ্ঠানের।

এই চূড়ান্ত অনুমোদনের আগেই ১০ কোটি ভ্যাকসিনের অগ্রিম চুক্তি করেছে ব্রিটিশ সরকার। মহামারি প্রতিরোধে এই টিকা নিয়ে গত ১০ মাস ধরে গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও অ্যাস্ট্রাজেনেকা। যেখানে একটি নিরাপদ ভ্যাকসিন পেতে হলে এক দশকেরও বেশি সময়ের প্রয়োজন হয়। 

অক্সফোর্ডের টিকার আগে সম্প্রতি তিনটি টিকার অগ্রগতি সম্পর্কে জানা গেছে। এগুলো হলো ফাইজার-বায়োএনটেক, স্পুটনিক ও মডার্না। ফাইজারের তৈরি করোনাভাইরাসের কোভিড–১৯ টিকা ৯৫ শতাংশ পর্যন্ত কার্যকরের দাবি করা হয়েছে। এই টিকায় উল্লেখযোগ্য কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও দেখা যায়নি জানায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রের আরেক বহুজাতিক ওষুধ কোম্পানি মডার্না ইনকরপোরেশন সম্প্রতি জানায়, মহামারি ঠেকাতে তাদের তৈরি টিকা ৯৪ দশমিক ৫ শতাংশ কার্যকর। আর রাশিয়া বলছে, তাদের স্পুটনিক টিকার কার্যকারিতা ৯০ শতাংশের বেশি। এ ছাড়া চীনও নিজেদের টিকা নিয়ে এমনই সফলতা দাবি করে আসছে।

পাঠকের মন্তব্য