এখনো শ্রমিকদের বেতন দেয়নি ৩৭০ কারখানা!

প্রণোদনা ঘোষণার পাশাপাশি সরকারের হুশিয়ারির পরও নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ৩৭০টি কারখানার মালিক তাদের শ্রমিকদের বেতন পরিশোধ করেননি বলে জানিয়েছে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতর।

মহামারী করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে ছুটির ও অচলাবস্থার পরিস্থিতিতে গত ১৩ এপ্রিল শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান হুশিয়ারি দিয়ে কারাখানা মালিকদের উদ্দেশে বলেছিলেন, ১৬ এপ্রিলের মধ্যে শ্রমিকদের বেতন পরিশোধ করতে হবে। ওই তারিখের মধ্যে বেতন দিতে ব্যর্থ হলে সংশ্লিষ্ট মালিকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এরপর ১৬ এপ্রিলের মধ্যে শ্রমিকদের বেতন পরিশোধ করার প্রতিশ্রুতি দেন কারখানা মালিকরা। কিন্তু প্রণোদনা ঘোষণার পাশাপাশি সরকারের হুশিয়ারির পরও প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেননি কারখানার মালিকরা।

শনিবার কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতরের মহাপদির্শক শিবনাথ রায় স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে বলা হয়, ঢাকা জেলার ১২২টি, গাজীপুর জেলার ১২০টি, নারায়ণঞ্জ জেলার ৩০টি, চট্টগ্রাম জেলার ৫৮টি, পাবনা জেলার তিনটি, নরসিংদী জেলার ছয়টি, ময়মনসিংহ জেলার ১১টি, মুন্সিগঞ্জ জেলার একটি, দিনাজপুর জেলার তিনটি, রংপুর জেলার দুটি, কুমিল্লা জেলার পাঁচটি, ফরিদপুর জেলার চারটি, রাজশাহী জেলার দুটি, খুলনা জেলার তিনটি কারখানার মালিক নির্ধারিত ১৬ এপ্রিলের মধ্যে শ্রমিকদের বেতন পরিশোধে ব্যর্থ হয়েছেন।

চিঠিতে বলা হয়, ২৩টি উপ-মহাপরিদর্শকের কার্যালয় থেকে প্রাপ্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে এই তালিকা তৈরি করা হয়েছে। চিঠিটি শ্রম মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র।

এদিকে বেতনের দাবিতে ঢাকা ও আশপাশের জেলাগুলোতে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করছেন শ্রমিকরা। ফলে করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকারের নেয়া পদক্ষেপ মারাত্মকভাবে বিঘ্নিত হচ্ছে। শ্রমিকদের এই জমায়েতের কারণে করোনা সংক্রমণ ভয়াবহ আকারে ছড়িয়ে পড়ার আশংকা রয়েছে।

পাঠকের মন্তব্য