ভারতের গরীব মুখ্যমন্ত্রীর তালিকায় দ্বিতীয় মমতা

ভারতের মুখ্যমন্ত্রীদের মধ্যে সবচেয়ে গরীব মুখ্যমন্ত্রী হলেন ত্রিপুরার মাণিক সরকার এবং র্দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।। তার সম্পত্তির পরিমাণ মাত্র ২৬ ও ৩০ লক্ষ রুপি। কোনো স্থাবর সম্পত্তি নেই তার। আর তৃতীয় গরীব মুখ্যমন্ত্রী হলেন জম্মু ও কাশ্মীরের মেহবুবা মুফতি।তার সম্পত্তির পরিমাণ ৫৫ লক্ষ রুপি।

দেশটির ২৯টি রাজ্য ও ২টি কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলের বাকী ২৮ জন মুখ্যমন্ত্রীর সম্পত্তির পরিমাণ কোটি রুপির উপর। এদের মধ্যে আবার ২৫ জনের সম্পত্তির পরিমাণ ১৬ কোটি রুপির উপরে। তবে ভারতের সবচেয়ে ধনী মুখ্যমন্ত্রী হলেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু। তার সম্পত্তির পরিমাণ ১৭৭ কোটি রুপি। চন্দ্রবাবুর সঙ্গে এই এক্সক্লিউসিভ শ্রেণিতে রয়েছেন অরুণাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী পেমা খান্ডু। তার মোট সম্পত্তির পরিমাণ ১২৯ কোটি। এই দুই মুখ্যমন্ত্রীর ঠিক পিছনেই রয়েছেন পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিংহ। তার মোট সম্পত্তির পরিমাণ ৪৮ কোটি। মুখ্যমন্ত্রীদের নির্বাচন কমিশনে দাখিল করা হলফনামার ভিত্তিতে সমীক্ষা চালিয়ে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা অ্যাসোসিয়েশন অফ ডেমোক্র্যাটিক রিফর্মস বা এডিআর এই তথ্য প্রকাশ করেছে। এদের সমীক্ষায় আরও জানা গেছে, অপরাধের দিক থেকে দেশটির ৩১ জন মুখ্যমন্ত্রীর মধ্যে ২০ জনের রেকর্ড একেবারে ক্লিন। ১১ জনের বিরুদ্ধে অপরাধমূলক মামলা চলছে। ৮ জনের বিরুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ অপরাধমূলক মামলা রয়েছে। তবে সবচেয়ে বেশি মামলা রয়েছে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফডনবীশের বিরুদ্ধে। তার বিরুদ্ধে মোট ২২টি মামলা রয়েছে। এরপরেই রয়েছেন কেরলের পিনারাই বিজয়ন (১১টি) এবং দিল্লির অরবিন্দ কেজরিওয়াল (১০)। এডিআর-এর তথ্য অনুযায়ী, শিক্ষার দিক থেকে প্রত্যেক রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীই শিক্ষিত। ৩৯ শতাংশ গ্র্যাজুয়েট, ৩২ শতাংশ প্রফেশনাল, ১৬ শতাংশ পোস্ট গ্র্যাজুয়েট। শুধুমাত্র ১০ শতাংশ মুখ্যমন্ত্রী রয়েছেন যারা হাইস্কুল পাস করেছেন। তবে সিকিমের মুখ্যমন্ত্রী পি.কে. চামলিং ডক্টরেট ডিগ্রিধারী।