বঙ্গবন্ধু পরিষদের চাপে পিছু হটল কুবি

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক মাহবুবুল হক ভূঁইয়ার এক মাসের বাধ্যতামূলক ছুটি প্রত্যাহার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। আজ সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. মজিবুর রহমান মজুমদারের স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে এই ছুটি প্রত্যাহার করা হয়।

গত ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে কুবির গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন প্রভাষক মাহবুবুল হক ভূঁইয়ার বিরুদ্ধে ক্লাস নেওয়ার অভিযোগ করে ছাত্রলীগ। এর তিনদিনের মাথায় ১৭ আগস্ট মাহবুবুল হক ভূঁইয়াকে এক মাসের বাধ্যতামূলক ছুটিতে পাঠায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। গঠন করে চার সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি।

ওই ছুটির আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে ক্ষোভে ফেটে পড়েন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থীসহ সারা দেশের সচেতন নাগরিকরা। দাবি আদায়ে গতকাল রোববার উপাচার্যকে তাঁর কার্যালয়ে প্রবেশে করতে দেননি শিক্ষক সমিতি ও বঙ্গবন্ধু পরিষদের নেতারা।
শিক্ষক মাহবুবুল হক ভূঁইয়ার বাধ্যতামূলক ছুটির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার চেয়ে উপাচার্যকে গতকাল আইনি নোটিশ পাঠান সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী জ্যোতির্ময় বড়ুয়া। ছুটি প্রত্যাহারের বিষয়ে কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তা ১২ ঘণ্টার মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও রেজিস্ট্রারকে জানাতে বলা হয়। এদিকে ছুটির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবিতে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থীরা অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি শুরু করেন।

গতকাল দিনভর কার্যালয়ে প্রবেশ করতে না পেরে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে প্রধান প্রকৌশলীর কক্ষে শিক্ষক সমিতি ও বঙ্গবন্ধু পরিষদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন উপাচার্য।

প্রায় এক ঘণ্টা আলোচনা শেষে উপাচার্য ড. মো. আলী আশরাফ সাংবাদিকদের বলেন, ‘পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে শিক্ষকদের সঙ্গে আলোচনা চলছে। আশা করি ইতিবাচক কিছু হবে।’