সৌদি যুবরাজকে বাঁচিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে ট্রাম্প ভুল করছেন: সিনেটর

মার্কিন ডেমোক্র্যাট সিনেটর জেফ মার্কলি বলেছেন, সৌদি ভিন্ন মতাবলম্বী সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডের ব্যাপারে যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমানকে বাঁচিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ভুল করছেন। মার্কিন সিনেটের পররাষ্ট্র সম্পর্ক বিষয়ক কমিটির সদস্য শুক্রবার দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, মোহাম্মাদ বিন সালমানকে বাঁচিয়ে দেয়ার পেছনে ট্রাম্পের একমাত্র যুক্তি হচ্ছে তার মাধ্যমে সৌদি আরবের কাছে হাজার হাজার কোটি ডলারের সমরাস্ত্র বিক্রি করছে ওয়াশিংটন।  এই যুক্তি দেখিয়ে ট্রাম্প কংগ্রেসে বিন সালমানের বিরুদ্ধে প্রস্তাব উত্থাপনের বিরোধিতা করছেন।

জামাল খাশোগি 

মার্কলি আরো বলেন, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও আরো জটিল নীতি গ্রহণ করে দাবি করছেন, মধ্যপ্রাচ্যে আমেরিকার নীতি বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে সৌদি আরব ওয়াশিংটনের সবচেয়ে বড় সহযোগী। কিন্তু এসব কথা বলে বিশ্বব্যাপী সাড়া জাগানো একটি হত্যাকাণ্ডের মূল হোতাকে দায়মুক্তি দেয়া হচ্ছে বলে এই সিনেটর অভিযোগ করেন।

সৌদি রাজতন্ত্র-বিরোধী সাংবাদিক জামাল খাশোগি গত ২ অক্টোবর মঙ্গলবার তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশ করার পর নিখোঁজ হন। সৌদি সরকার ১৭ দিন ধরে খাশোগির অবস্থান সম্পর্কে কোনো কিছু জানা থাকার কথা অস্বীকার করেন ।

মোহাম্মাদ বিন সালমান

পরে তীব্র আন্তর্জাতিক চাপের মুখে অবশেষে ১৯ অক্টোবর স্বীকার করে যে, খাশোগিকে সৌদি কনস্যুলেটের ভেতরে হত্যা করা হয়েছে। সৌদি সরকারের হাতে আটক ও খুন হওয়ার আশঙ্কায় স্বেচ্ছায় দেশত্যাগ করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করছিলেন জামাল খাশোগি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাকে সৌদি কনস্যুলেটের মধ্যেই সৌদি গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের হাতে নির্মমভাবে নিহত হতে হয়।

হত্যাকাণ্ডের দায়ে এক ডজনেরও বেশি সৌদি কর্মকর্তাকে আটক করা হলেও তুরস্কের তদন্তকারী কর্মকর্তারা তাদের হাতে থাকা তথ্যপ্রমাণের ভিত্তিতে বলেছেন, সৌদি যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমানের সরাসরি নির্দেশে খুন হন জামাল খাশোগি।