বিএনপি পাটকল বন্ধের শর্তে বিশ্বব্যাংক থেকে অর্থ নিয়েছিল: প্রধানমন্ত্রী

আজ (মঙ্গলবার) সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতীয় পাট দিবসের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন,সোনালি আঁশের সোনার দেশ, পাট পণ্যের বাংলাদেশ’- এই প্রতিপাদ্যে প্রথমবারের মতো জাতীয় পাট দিবস উদযাপন করছে সরকার।আর এই পাটশিল্পকে বিএনপি সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস করে দিতে চেয়েছিল। কিন্তু এই শিল্প তো ধ্বংস করার কথা ছিল পাকিস্তানের। তাহলে কেন বিএনপি এটা করল। কারণ তাদের দিলে পেয়ারে পাকিস্তান। তারা পাকিস্তানের পদলেহন করে।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি সরকার ক্ষমতায় এসে দেশের পাটকলগুলো ক্রমান্বয়ে বন্ধ করে দেয়। ১৯৯৬ সালে আমরা যখন ক্ষমতায় এসে বন্ধ পাটকলগুলো খুলে দিতে শুরু করলাম। এরপর ২০০১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় এসে আদমজী জুট মিল বন্ধ করে দিল। যেখানে ২৫ হাজার শ্রমিক কর্মরত ছিলেন।

শেখ হাসিনা প্রশ্ন রেখে বলেন, পাট উৎপাদনকারী দেশে কেন পাটকল বন্ধ করা হবে? ওই বিএনপি এটা করেছে। আওয়ামী লীগের বিরোধিতা সত্ত্বেও বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোট সরকার পাটকল বন্ধের শর্তে বিশ্বব্যাংকের কাছে থেকে অর্থ নিয়েছিল বলে শেখ হাসিনা উল্লেখ করেন।

শেখ হাসিনা বলেন, পাট এমন একটি জিনিস। যা পরিবেশবান্ধব। এর চাহিদা শেষ হবে না। আমরা এর ওপর গবেষণার সুযোগ করে দিলাম। পাটের জীবন রহস্য উন্মোচনের দ্বার খুলে দিলাম। এই আবিষ্কারের পর পাটের অধিকার প্রতিষ্ঠিত হলো।

তিনি বলেন, আমাদের রপ্তানি বহুমুখী করতে হবে। পাট আধুনিকীকরণ করতে হবে। এর ব্যবস্থা আমরা করে দিচ্ছি। বেসরকারি খাতকে আমরা সুবিধা দিচ্ছি। আমরা বন্ধ পাটকল খুলে দিচ্ছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, পাটের বাজার এখন খুলে গেছে। যত উ্ন্নত পাট তৈরি করতে পারবো, তত রপ্তানি বাড়বে। আমরা ‘পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন, ২০১০’ করে দিয়েছি। এর ফলে পাটের চাহিদা বেড়ে গেছে। এ খাতে সব সমস্যা মোকাবেলা করা হবে।

অন্যান্য শিল্পের মতো পাট শিল্পও প্রচুর পরিমাণে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলেও আশা প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী তার পরিহিত শাড়ি, ব্যবহৃত জুতা ও সঙ্গে থাকা ব্যাগটি পাটের বলে জানান।